Home Privacy Policy About Contact Disclimer Sitemap
নোটিশ :
আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ! সারাদেশে সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে । যোগায়োগ করুন : ০১৭৪০৭৪৩৬২০
করোনা মোকাবিলায় স্বাস্থ্য বিভাগ ও নওগাঁ সদর হাসপতাল

করোনা মোকাবিলায় স্বাস্থ্য বিভাগ ও নওগাঁ সদর হাসপতাল

রাসেল রানা, নওগাঁ প্রতিনিধিঃ       নওগাঁ করোনা চিকিৎসার জন্য ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নওগাঁ আধুনিক হাসপাতালসহ ১০টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২০১ শয্যা রয়েছে। এর মধ্যে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নওগাঁ আধুনিক হাসপাতালে ৪৫টি, সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২১টি এবং জেলার অপর ৯টি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১৫টি করে মোট ১৩৫টি শয্যা রয়েছে। জেলার ১১টি সরকারি হাসপাতালের কোনোটিতেই আইসিইউ শয্যা নেই। কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহ ব্যবস্থা রয়েছে চারটি হাসপাতালে। ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নওগাঁ আধুনিক হাসপাতাল, নিয়ামতপুর, পোরশা ও সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহ ব্যবস্থা আছে। বাকি ৭টি সরকারি হাসপাতালে কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহ ব্যবস্থা নেই।

নওগাঁ সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার পর্যন্ত জেলায় ২ হাজার ৫৯৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৫৩ জন। এই হিসাবে গতকাল পর্যন্ত জেলায় করোনা আক্রান্ত (সক্রিয়) রোগী ছিলেন ৫০৪ জন। এর মধ্যে নওগাঁর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৬৫ জন ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে ৪০ জন করোনা রোগী এবং বাকি ২৫ জন করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন। ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নওগাঁ আধুনিক হাসপাতালে ১৭ জন, নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৭ জন, সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৫ জন, পতœীতলা ও ধামইরহাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২ জন করে, পোরশা ও মহাদেবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩ জন করে এবং মান্দা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন। জেলার বদলগাছী, আত্রাই ও রাণীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের করোনা ইউনিটে কোনো রোগী ভর্তি ছিলেন না।
গত করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার শুরুতেই ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নওগাঁ আধুনিক হাসপাতালের নতুন ভবনের নিচ তলায় দুটি ওয়ার্ডে করোনা রোগীর চিকিৎসার জন্য করোনা ইউনিট খোলা হয়। গত শনিবার এই হাসপাতালে করোনা রোগী ও অন্যান্য রোগে আক্রান্ত শ্বাসকষ্টের রোগীদের কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহ প্লান্ট উদ্বোধন করা হয়।

২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নওগাঁ আধুনিক হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, হাসপাতালের করোনা ইউনিটের দুটি ওয়ার্ডের একটিতে করোনা আক্রান্ত রোগীদের ভর্তি রেখে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে। এই ওয়ার্ডের ২৫টি শয্যার মধ্যে ১৭টি শয্যায় রোগী রয়েছেন। বাকি ৮টি শয্যা ফাঁকা আছে। এই ওয়ার্ডের ২৫টি শয্যাতেই কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহ ব্যবস্থার সংযোগ রয়েছে। করোনা ইউনিটের অপর ওয়ার্ডটিতে করোনার উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ওই ওয়ার্ডের ২০টি শয্যার মধ্যে ৮টি শয্যায় রোগী ভর্তি ছিলেন। এই ওয়ার্ডের ১০টি শয্যায় কেন্দ্রীয় অক্সিজেন সরবরাহ ব্যবস্থার সংযোগ রয়েছে।

নওগাঁ সদর হাসপাতালের নতুন ভবনের নিচ তলায় করা করোনা ইউনিটটি অনেকটা নিরিবিলি। ওই তলায় হাসপাতালের আর কোনো সেবা কার্যক্রম না থাকায় অন্য রোগী কিংবা রোগীর স্বজনদের করোনা রোগীর সংস্পর্শে আসার সুযোগ নেই।
গতকাল দুপুরে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নওগাঁ আধুনিক হাসপাতালের করোনা ইউনিট ঘুরে দেখা যায়, করোনা ইউনিটের ৪৫টি শয্যার মধ্যে ২০টি শয্যায় খালি রয়েছে। হাসপাতালের অন্য ওয়ার্ডগুলোর মতো করোনা ইউনিটের সামনে রোগীদের স্বজনদের কোনো জটলা নেই। ওয়ার্ডের ভেতরে ভর্তি থাকা রোগীরা সবাই মাস্ক পরে রয়েছেন। তিন-চার জন রোগীর শয্যার কাছে তাঁদের স্বজন ছিলেন। তাঁরা মাস্ক ও হাতে গ্লোভসও পরে রয়েছেন। করোনা ইউনিটের ওয়ার্ডে ঢোকার দরজার সামনে স্যানিটাইজার রাখা রয়েছে।

জেলায় বর্তমানে ৫০৪ জন করোনা রোগীর মধ্যে মাত্র ৪০ জন রোগীর হাসপাতালে ভর্তির বিষয়ে জানতে চাইলে সিভিল সার্জন এবিএম আবু হানিফ প্রথম আলোকে বলেন, ‘নওগাঁয় হাসপাতালে রোগী ভর্তি না থাকার বেশ কিছু কারণ রয়েছে। এর মধ্যে এ জেলায় এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে স্বাস্থ্য জটিলতার প্রবণতা কম দেখা গেছে। জটিলতা নেই এমন রোগীদের আমরা বাড়ি থেকেই চিকিৎসা নিতেই উৎসাহিত করে থাকি। এজন্য বেশিরভাগ রোগীই বাড়ি থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন। এছাড়া অনেক রোগী নিজে থেকেই রাজশাহী কিংবা বগুড়ার হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আর যাঁরা হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন তাঁদের মধ্যে খুব বেশি জটিলতা দেখা দিলে তাঁদের রাজশাহী কিংবা বগুড়া পাঠাতে হয়। কারণ জেলার কোনো হাসপাতালে আইসিইউ বেড নেই। উন্নত চিকিৎসার সুযোগ-সুবিধা না থাকায় অনেক রোগী নিজেরাই রাজশাহী কিংবা বগুড়ার হাসপাতালগুলোতে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights Reserved
Developed By Cyber Planet BD