Home Privacy Policy About Contact Disclimer Sitemap
নোটিশ :
আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ! সারাদেশে সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে । যোগায়োগ করুন : ০১৭৪০৭৪৩৬২০
চলন্ত বাসে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা

চলন্ত বাসে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা

সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে চলন্ত বাসে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার মামলায় মূল আসামি বাসচালক শহীদ মিয়াকে (২৬) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। আজ সোমবার দিরাই জোনের বিচারক জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. রাগীব নূরের আদালতে তার রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

এর আগে আসামিকে আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে বিচারক তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেওয়া হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেন সুনামগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক মো. আশেক সুজা মামুন।

বাস চালক শহীদ মিয়া সিলেটের জালালবাদ থানার মোগলগাঁও ইউনিয়নের মোল্লারগাঁও গ্রামের তৌফিক মিয়ার ছেলে। গত শনিবার ভোরে সুনামগঞ্জের পুরাতন বাস স্টেশন থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গতকাল রোববার সিআইডির হেডকোয়ার্টারে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে রাতেই শহীদ মিয়াকে দিরাই থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।

চলন্ত বাসে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় এর আগে ২৭ ডিসেম্বর রাতে বাসের হেলপার রশিদ আহমদকে ছাতকের বুরাইরগাঁও থেকে গ্রেপ্তার করে সিলেটের পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। হেলপার রশিদও ২৯ ডিসেম্বর আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জাবনবন্দি দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ ডিসেম্বর শনিবার বিকালে সিলেটের লামাকাজী থেকে দিরাইয়ে যাচ্ছিলেন ওই কলেজ ছাত্রী। দিরাই পৌরসভার সুজানগর গ্রামে বাসটি পৌঁছালে অন্য যাত্রীরা নেমে যান। এসময় বাসে একা হয়ে যান ওই ছাত্রী। এ সুযোগে চালক ও হেলপার তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন।

সম্ভ্রম বাঁচাতে ওই ছাত্রী চলন্ত বাস থেকেই রাস্তায় লাফিয়ে পড়েন। স্থানীয়রা তাকে সড়কের পাশ থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে দিরাই হাসপাতালে নেন। মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়ায় সেখান থেকে ওই ছাত্রীকে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। ওই ঘটনায় স্থানীয়রা বিক্ষোভ করেন। খবর পেয়ে পুলিশ বাসটি জব্দ করলেও চালক ও হেলপার পালিয়ে যায়।

ঘটনার দিন রাতেই ছাত্রীর বাবা বাস চালক শহীদ মিয়া ও হেলপার রশিদ আহমদসহ তিনজনকে আসামি করে দিরাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করেন। ভুক্তভোগী ছাত্রী সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে গত বৃহস্পতিবার আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। ওই ছাত্রী বর্তমানে বাবা-মার তত্ত্বাবধানে আছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights Reserved
Developed By Cyber Planet BD