Home Privacy Policy About Contact Disclimer Sitemap
নোটিশ :
আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন ! সারাদেশে সংবাদদাতা নিয়োগ চলছে । যোগায়োগ করুন : ০১৭৪০৭৪৩৬২০
সংবাদ শিরোনাম :
বিরামপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে নারীর মৃত্যু নওগাঁ-সাপাহারে কৃষকের সোনালী স্বপ্ন এখন পানিতে ভাঁসছে বিরামপুরে বোরো ধান-চাল সংগ্রহের উদ্বোধন চাঁপাইনবাবগঞ্জে ধান বোঝাই ট্রাক উল্টে নিহত ২ আহত-৬ চাষী বাজার স্থায়ীকরণের দাবিতে মানববন্ধন রাজশাহীতে কৃষক হত্যার বিচার সহ ১৬ দফা দাবিতে চাঁপাইনবাবগঞ্জে মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জ নিরাপদ-বিষমুক্ত আম উৎপাদন, বিপণন ও বাজারজাতকরণের লক্ষ্যে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত বঙ্গবন্ধু ও শেখ ফজিলাতুন্নেছা জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনূর্ধ্ব ১৭ বালিকও বালিকা উদ্বোধন প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ডিসি সুলতানার বিরুদ্ধে সাংবাদিক আরিফের করা মামলার তদন্তে পিবিআই
সৎ কর্তব্য পরায়ণ ও গরিবের বন্ধু বরগুনার এসপি জাহাঙ্গীর মল্লিক

সৎ কর্তব্য পরায়ণ ও গরিবের বন্ধু বরগুনার এসপি জাহাঙ্গীর মল্লিক

রাসেল হাওলাদার, বরগুনা :    পুলিশ নিয়ে অনেকের বিরূপ ধারণা থাকলে ও বরগুনার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর মল্লিক সে ধারণা সম্পূর্ণ বদলে দিয়েছেন। একজন ব্যতিক্রমধর্মী পুলিশ সুপার। প্রতিনিয়ত তিনি কাজ করে যাচ্ছেন জনগন ও দেশের কল্যাণে । “পুলিশ জনগণের বন্ধু” তিনি এই বাক্যটির উৎকৃষ্ট নিদর্শন।তিনি অন্যতম একজন আদর্শ পুলিশ সুপার যিনি তার দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে আধুনিকতা, প্রযুক্তি ও সততা এবং মেধার দক্ষতা দিয়ে অপরাধ দমন করার চেষ্টা করেন দেশের কল্যাণে।

“পুলিশ জনতার, জনতা পুলিশের” এই স্লোগানকে বাস্তবে রূপ দিয়েছেন এসপি জাহাঙ্গীর মল্লিক। তিনি মানুষের চোখে একজন সৎ, আদর্শবান, ন্যায়নিষ্ঠ ও গরিবের বন্ধুসুলভ পুলিশ সুপার ।

তিনি তার সততা, ন্যায়নিষ্ঠা ও তার বিচক্ষণ বুদ্ধিমত্তা এবং মেধার বিকাশে মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ মুক্ত করেছেন। তার চোখে ধনী-গরিব, রিক্সাচালক হতে সব শ্রেণিপেশার মানুষ সমান। তিনি বিভিন্ন সময় বিভিন্ন বেশে মানুষের মাঝে উপস্থিত হয়ে মানুষের সুখ দুঃখের কথা শুনেছেন। তিনি শুধু একজন পুলিশ কর্মকর্তাই নন পাশাপাশি অনেক সামাজিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ ও অবদান রেখেছেন। বৈশ্বিক দুর্যোগ করোনার সময় যখন সারা দেশে লকডাউন অবস্থা সৃষ্টি হয় এবং সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয় সে সময় দিনরাত পালাক্রমে দুস্থ ও অসহায় মানুষের পাশে ঘরে ঘরে তিনি ও তার টিম সরকারি ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে সংগৃহীত বিভিন্ন ধরনের মানবিক সহায়তা পৌঁছে দিয়েছেন।

বরগুনাবাসী বলেন, তিনি একজন সৎ ও অন্যায়ের কাছে আপোষহীন পুলিশ অফিসার। তিনি আমাদের বন্ধু তার অক্লান্ত পরিশ্রমে আজ মাদক, চাদাঁবাজ, ইভটিজার, মুক্ত বরগুনা। তারা আরো বলেন, তাঁর মতো একজন সৎ, ন্যায়নিষ্ঠা পুলিশ অফিসার পেয়ে আমরা সত্যিই ধন্য।

মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর মল্লিক বলেন , বর্তমান সরকার গণমানুষের বন্ধু, সরকার আমাদের পাঠিয়েছেন মানুষের মুখেহাসি ফোটাতে তাদেরকে হেফাজত করতে , মানুষের সাথে মিলেমিশে তাদের সুখ দুঃখভাগাভাগি করে নিতে। আমরা মানুষের অতন্ত্র প্রহরী আমাদের কাজ হচ্ছে দেশকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, চাদাঁবাজ, ইভটিজার মুক্ত করে মানুষের মাঝে শান্তি ফিরিয়ে আনা।

আমার কাছে ধনী-গরিব, রিক্সাচালকসহ সব শ্রেণিপেশার মানুষ সমান। একজন নির্যাতিত মানুষের শেষ আশ্রয়স্থল হলো পুলিশ। আর আমরা যদি তাদের আশ্রয় এবং তাদের সমস্যা নিরসন না করি তাহলে কে করবে। “পুলিশ জনতার এবং জনতা পুলিশের” আমি এই স্লোগানকে সামনে রেখে এবং সাধারণ মানুষের দোয়া ও ভালবাসা নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশকে মাদক, সন্ত্রাস মুক্ত করতে এগিয়ে যাব।

আমি একটি কথা বলবো জনগণের উদ্দেশ্যে-আপনারা পুলিশ কে নিজের বন্ধু ভাবুন, পুলিশ জনগণের বন্ধু। পুলিশজনগণের শুধু বন্ধুই নয়, সেবকও। পুলিশ সব সময়ই জনগণের বন্ধুহিসেবে জনগণের পাশে ছিল এবং আগামীতেও থাকবে। জনগণের আন্তরিক সহযোগিতা ছাড়া পুলিশের পক্ষে ব্যাপক জনগোষ্ঠীর সেবা দেয়া সম্ভব নয়।

বরগুনা সুশীল সমাজের অভিমত এসপি জাহাঙ্গীর মল্লিকের সততা ও ন্যায়নিষ্ঠায় মুগ্ধ হয়ে বলেন, জীবন সংগ্রামকে সঠিকভাবে উপলব্ধি করার জন্য প্রয়োজন সঠিক মানুষের সঠিক পুলিশ অফিসারের । যে দিন বাংলাদেশের প্রতিটা জেলায় একজন করে এমন পুলিশ সুপার থাকবেন সেদিনই বাংলাদেশ হয়ে উঠবে নিরাপদ, সুন্দর এবং শান্তিময় দেশ।

২৯ ডিসেম্বর ২০২০ বরগুনাতে যোগদান করেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর মল্লিক । তিনি বরগুনায় যোগ দিয়েই পাল্টিয়ে দিতে শুরু করেছেন এখানকার সমাজ ব্যবস্থা। বিরল অসাধ্যটিকেই সত্যিতে পরিনত রুপরেখা করতে যাচ্ছেন । এর আগে তিনি সি,এস,বি পুলিশের উপকমিশনার ছিলেন। সেখানকার সমাজ ব্যবস্থাপনা ও অস্থির জনপদে শান্তির সু-বার্তা ছড়িয়ে দিয়ে বরগুনায় এসেছেন। ইতিমধ্যেই মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। তিনি মাদক নির্মূলসহ জেলার শান্তি-শৃঙ্খলা রাক্ষায় সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন।এছাড়া প্রতিটি পরিবারের সন্তানরা কে কোথায় যাচ্ছে, কাদের সাথে মিশছে, কখন ঘরে ফিরছে এসব বিষয়ে সকল পিতা-মাতাকে নজরদারী করার পরামর্শ দেন ।লেখাপড়া ফাকি দিয়ে আড্ডার ফলে যুবসমাজ যাতে ধ্বংসের পথে পা বাড়াতে না পারে সে দিকে খেয়াল রেখে বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights Reserved
Developed By Cyber Planet BD